Khulna University News

খুবিতে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষক ও কর্মকর্তাদের অংশগ্রহণে ‘স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূমিকা’ শীর্ষক এক সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ ১৯ মে (রবিবার) সকাল ১০.৩০ মিনিটে বিশ্ববিদ্যালয়ের ই-গভর্ন্যান্স ও উদ্ভাবন কর্মপরিকল্পনা কমিটির আয়োজনে আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র রায় কেন্দ্রীয় গবেষণাগারের সম্মেলন কক্ষে এ সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়। সেমিনারে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন।
তিনি বলেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় উদ্ভাবনী ধারণা নিয়ে এগিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। এই অল্প সময়ের মধ্যে আমরা বেশকিছু মাইলফলক অর্জন করেছি। এর মধ্যে অনলাইন কোর্স রেজিস্ট্রেশন, অনলাইন রেজাল্ট, লাইব্রেরির স্মার্ট কার্ড অন্যতম। সার্বিকভাবে জবাবদিহিতা বৃদ্ধিতে এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ঘোষিত ‘স্মার্ট বাংলাদেশ’ গড়ার পদক্ষেপের অংশ হিসেবে দক্ষ জনসম্পদ তৈরিতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে এগুলো বাস্তবায়ন করা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় প্রথমবারের মতো ইনোভেশন শোকেসিং আয়োজন করেছে। যাতে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তারা অনেকগুলো উদ্ভাবনী ধারণা উপস্থাপন করেন। এ সমস্ত উদ্ভাবনী ধারণাকে পুরস্কারের পাশাপাশি কিছু ধারণাকে পাইলটিংয়ের মাধ্যমে মার্কেটে আনতে পারলে তা হবে আমাদের উল্লেখযোগ্য সাফল্য।
উপাচার্য বলেন, সরকারের আইসিটি বিভাগ থেকে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে রিসার্চ এন্ড ইনোভেশন সেন্টার করা হয়েছে। সেই রিসার্চ সেন্টার থেকে গবেষণা ও উদ্ভাবনের জন্য অর্থায়ন করা হচ্ছে। সার্বিকভাবে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ার ক্ষেত্রে দেশের প্রথম সারির অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের সাথে একইভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। এই এগিয়ে যাওয়ার ক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকমণ্ডলী, কর্মকর্তা-কর্মচারী এবং শিক্ষার্থীদের উদ্যোগ অব্যাহত থাকলে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে সক্ষম হবে।
সেমিনারে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. মোসাম্মাৎ হোসনে আরা এবং ট্রেজারার প্রফেসর অমিত রায় চৌধুরী। রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) ও এপিএ টিম লিডার প্রফেসর খান গোলাম কুদ্দুসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে সেমিনারের সার্বিক বিষয় উপস্থাপন করেন ই-গভর্ন্যান্স ও উদ্ভাবন কর্মপরিকল্পনা কমিটির ফোকাল পয়েন্ট ও আইসিটি সেলের পরিচালক প্রফেসর ড. কাজী মাসুদুল আলম।
সেমিনারে মুখ্য আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য প্রফেসর ড. সোবহান মিয়া। তিনি স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর করণীয় বিভিন্ন দিক তুলে ধরেন। বহিঃস্থ আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন (ইউজিসি) এর রিসার্চ, সাপোর্ট এন্ড পাবলিকেশন ডিভিশনের পরিচালক ড. মো. ফখরুল আলম। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন আইসিটি সেলের সেকশন অফিসার (আইটি) ইঞ্জি. এস এম নাবিল সাকিফ।
অনুষ্ঠানে ইনোভেশন শোকেসিং এর দুটি গ্রুপের শ্রেষ্ঠ উদ্ভাবকদের মাঝে পুরস্কার ও সনদপত্র বিতরণ করা হয়। এ সেমিনারে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্কুলের ডিন, ডিসিপ্লিন প্রধান, প্রভোস্ট, পরিচালক ও বিভাগীয় প্রধান এবং এপিএ’র বিভিন্ন কমিটির ফোকাল পয়েন্ট ও বিকল্প ফোকাল পয়েন্টবৃন্দ অংশগ্রহণ করেন।