খুবির এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স ডিসিপ্লিন আয়োজিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন উপলক্ষ্যে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত

91

খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স ডিসিপ্লিনের উদ্যোগে আয়োজিত আন্তর্জাতিক সম্মেলন উপলক্ষ্যে আজ ১০ ফেব্রুয়ারি (বৃহস্পতিবার) দুপুর সাড়ে ১২টায় এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। সংবাদ সম্মেলনের বিভিন্ন দিক তুলে ধরে বক্তব্য রাখেন আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজক কমিটির অরগানাইজিং সেক্রেটারি সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিন প্রধান প্রফেসর ড. আব্দুল্লাহ হারুন চৌধুরী।
তিনি জানান, ১৯৯৬-৯৭ শিক্ষাবর্ষ থেকে দেশে স্নাতক পর্যায়ে পরিবেশ বিজ্ঞান বিষয়ক শিক্ষাকার্যক্রম প্রথম শুরু হয় খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে। এবছর এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স ডিসিপ্লিনের ২৫ বছর পূর্তি তথা রজতজয়ন্তী। এটাকে সামনে রেখে এবং আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের আগ্রহ ও নির্দেশনার প্রেক্ষিতে এই আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজনে উদ্বুদ্ধ হয়েই ‘ক্লাইমেট চেঞ্জ এন্ড ইকোসিস্টেম রেস্টোরেশন’ শিরোনামে আগামী ১৯ ও ২০ ফেব্রুয়ারি দু’দিনব্যাপী ডিসিপ্লিনের প্রথম আন্তর্জাতিক সম্মেলন আয়োজন করা হয়েছে। এই আন্তর্জাতিক সম্মেলনে ৬টি কি-নোট পেপার এবং ১২৫টি গবেষণা নিবন্ধ উপস্থাপিত হবে।
তিনি আরও জানান, সম্মেলনের উদ্বোধনী দিনে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন প্রধান অতিথি এবং একই মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন। বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মাহমুদ হোসেন এই সম্মেলনে চিফ প্যাট্রন হিসেবে উপস্থিত থাকবেন এবং খ্যাতনাাম বিজ্ঞানী হিসেবে তিনিও একটি পেপার উপস্থাপন করবেন। দেশের খ্যাতনামা পরিবেশবিদ প্রফেসর ড. আইনুন নিশাত এবং ড. আলী রেজা খান ছাড়াও ভারত, পাকিস্তান, নেপাল, সংযুক্ত আরব আমিরাত, সুইডেনসহ দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞ, বিজ্ঞানী সশরীরে এবং ভার্চুয়ালি এই সম্মেলনে অংশগ্রহণ করবেন। এবার এই সম্মেলনে ৬০ জন তরুণ গবেষকের গবেষণা নিবন্ধও উপস্থাপিত হবে। সম্মেলনের এই গবেষণা নিবন্ধ ছাড়াও পোস্টার প্রদর্শনী, স্টলেও বিভিন্ন কার্যক্রম প্রদর্শন পুরস্কারের ব্যবস্থা থাকছে। জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে সবচেয়ে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অবস্থা এ সম্মেলন উঠে আসবে এবং এ বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক-বিজ্ঞানীরা নতুন নতুন দিকনির্দেশনা পাবেন বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
সম্মেলনের সমাপনী দিনে প্রধান অতিথি থাকবেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী বেগম হাবিবুন নাহার। অংশগ্রহণকারী বিজ্ঞানীরা এদিন দুপুরে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে দেশের সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সুন্দরবন এবং উপকূলীয় জয়মনি এলাকা পরিদর্শন করবেন। এই সম্মেলন শেষে একটি সুপারিশ মালা তৈরি করা হবে।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন অরগানাইজিং কমিটির আহ্বায়ক প্রফেসর ড. দিলীপ কুমার দত্ত ও জয়েন্ট অরগানাইজিং সেক্রেটারি প্রফেসর ড. মোঃ মুজিবর রহমান উপস্থিত ছিলেন।